ভেলোর পুলিশের দ্বারা চুরিকৃত সোনা গয়না উদ্ধারের ছবি তিরুপতি মন্দিরের পুরোহিতদের নামে জুড়ে  ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল

False National

সম্প্রতি সামজিক মাধ্যম ফেসবুকে একটি ছবি শেয়ার করে সেটিকে আয়কর বিভাগের তল্লাশি অভিযানে তিরুপাতি মন্দিরের পুরোহিতের বাড়ি থেকে উদ্ধারকৃত সোনার ছবি দাবি করা হচ্ছে। সাথে এও দাবি করা হচ্ছে পুরহিতের বাড়ি থেকে ১২৮ কেজি সোনা, ১৮০ কোটি টাকা ও ৭৭ কোটি মুল্যের হীরা উদ্ধার করেছে আয়কর বিভাগের কর্মকর্তারা। পোস্টের ছবিতে দেখা যাচ্ছে একটি টেবিলের উপর অনেকগুলো সোনার চেইন সাজিয়ে রাখা আছে এবং টেবিলকে ঘিরে দাড়িয়ে রয়েছে লোকের ভিড়।  

পোস্টের ক্যাপশনে লেখা হয়েছে “🙏ভগবান দেশকে রক্ষা করুন ।🙏 গতকাল তিরুপতি বালাজিতে ১৬ জন পুরোহিতের মধ্যে একজন পুরোহিতের বাড়িতে আয়কর কর্মকর্তারা অভিযান চালায়। অভিযানে 128 কেজি সোনা, 150 কোটি টাকা নগদ এবং 77 কোটি টাকার হীরা ধরা পড়ে। ভগবানের  নামে উৎসর্গ করা দানের ওপর ভগবানের পর একমাত্র গভর্মেন্ট এর অধিকার হওয়া উচিত, কিন্তু তবুও মেনে নিচ্ছি যে এটা পুরুহিত দের আয়। But Income tax টা তো অন্তত দে 😀। সেটাও দিবিনা, তালে দেখ কেমন লাগে 😀😀😀😀“ 

তথ্য যাচাই করে আমরা দেখতে পেয়েছি এই দাবি ভুয়ো এবং বিভ্রান্তিকর। ছবিতে দেখতে পাওয়া সোনা, গয়না ও টাকা গুলো আসলে ভেলোর পুলিশ দ্বারা উদ্ধার করা যেগুলো একটি অলঙ্কারের দোকান থেকে চুরি করা হয়েছিল। 

ফেসবুক পোস্ট 

তথ্য যাচাই

এই দাবির সত্যতা যাচায় করতে আমরা ছবিটিকে গুগল রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। ফলে Vikatan TV নামের এক ইউটিউব চ্যানেলে এই ছবি কেন্দ্রিক এক ভিডিও উপস্থাপন পাওয়া যায়। ২৩ ডিসেম্বর ২০২১ তারিখে আপলোড করা এই উপস্থাপন অনুযায়ী, ভেলরে একটি অলঙ্কারের দোকান থেকে ৮ কোটি মুল্যের হীরা ও ১৫.৯ কেজি সোনা চুরি করা হয়েছিল। 

চোর জানিয়েছে, ভেলোর পুলিশ ওদুগাথুর নামক একটি জায়গা থেকে একজনকে গ্রেফতার করেছে। জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত পুলিশকে জানায়, সে ইউটিউব ভিডিও দেখে চুরি করেছে। 

দি হিন্দু-এর ২১ দিসেম্বর,২০২১, তারিখের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ধৃত চোরের নাম হল টি কে রমন। ২৩ বছর বয়সী এই অপরাধীকে পুলিশ ওদুগাথুর গ্রাম থেকে গ্রেফতার করে। চুরিকৃত সোনা গয়না সে মাটির ভেতর পুঁতে রেখেছিল।  

প্রতিবেদন আর্কাইভ 

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, ইন্ডিয়া টুডে প্রতিবেদন 

সংবাদমাধ্যম নিউজ১৮ এর তামিলনাড়ুর সাংবাদিক মহালিঙ্গম পন্নুস্বামি এই ছবি কেন্দ্রিক এক ভিডিও টুইট করে জানিয়েছে ’ভেলোর পুলিশ একজন চোরকে গ্রেফতার করেছে, যে ভেলোরে জসালুক্কাস জুয়েলারি দোকানের দেয়াল গর্ত করে 15 কেজি সোনা ও হীরার গহনা চুরি করেছিল 🌟💐।’

ফ্যাক্ট ক্রিসেণ্ডো ভেলরের ডি আই জি এ জি বাবুর সাথে যোগাযোগ করে। তিনি আমাদের জানিয়েছেন “ভাইরাল ছবিটির সাথে করা দাবিটি ভুয়ো, ছবিটি ভেলোরে জব্দ করা সোনা চুরির গহনা সম্পর্কিত।“ 

তথ্যের ভিত্তিতে স্পষ্ট হয়ে ভাইরাল ছবিটির তিরুপাতি মন্দিরের সাথে কোন ভাবেই সম্পর্কিত নয়। 

তিরুপাতি মন্দিরে কি আয়কর বিভাগের তল্লাশি অভিযান চালানো হয়েছে ? 

গুগল, ইউটিউব সহ অন্যান্য সামাজিক মাধ্যমে প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে তিরুপতি মন্দিরে আয়কর বিভাগের তল্লাশি অভিযান সম্পর্কে কোন খবর প্রতিবেদন আমরা পাইনি। তিরুপতি মন্দিরে আয়কর বিভাগের তল্লাশি অভিযান চললে তা মুখ্যধারার প্রতিবেদনে জায়গা পাবে। এরকম কোন প্রতিবেদন না পাওয়াই আমরা এই সিদ্ধান্তে উপনিত হতে পারি যে তিরুপতি মন্দিরের সম্পর্কে দাবি করা এই পোস্টটি ভুয়ো বিভ্রান্তিকর।  

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিস্যান্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুয়ো ও ভিত্তিহীন। ছবিতে দেখতে পাওয়া সোনা, গয়না ও টাকা গুলো আসলে ভেলোর পুলিশ দ্বারা উদ্ধার করা যেগুলো একটি অলঙ্কারের দোকান থেকে চুরি করা হয়েছিল

Avatar

Title:ভেলোর পুলিশের দ্বারা চুরিকৃত সোনা গয়না উদ্ধারের ছবি তিরুপতি মন্দিরের পুরোহিতদের নামে জুড়ে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল

Fact Check By: Nasim A 

Result: False


Leave a Reply

Your email address will not be published.