২০১৪ সালে সিরিয়ায় সমাধিস্তুপ ধ্বংসের ঘটনাকে প্যালেস্তাইনের সাথে যুক্ত করে ভুয়ো ভিডিও ভাইরাল

False International

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে একটি ভিডিও শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, আজানরত অবস্থায় প্যালেস্তাইনের একটি মসজিদ বোমা মেরে ধ্বংস করলো ইজরায়েল। ১৭ সেকেন্ডের ভাইরাল এই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে একটি মসজিদে আজান বাজছে এবং কিছুক্ষনের মধ্যেই এক বিস্ফোরণে সেটি ধূলিসাৎ হয়ে যায়।  

তথ্য যাচাই করে আমরা জানতে পারি পোস্টের মাধ্যমে করা দাবিটি ভুয়ো ও ভিত্তিহীন। ২০১৪ সালে জঙ্গি সংগঠন আইসিস (ISIS) দ্বারা সিরিয়ায় একটি সমাধিস্তুপ ধ্বংস করার ঘটনাকে ভুয়ো দাবির সাথে ভাইরাল করা হচ্ছে।  

ফেসবুক পোস্ট

তথ্য যাচাইঃ 

এই দাবির সত্যতা যাচাই করতে ভিডিওটিকে ‘ইনভিড উই ভেরিফাই’ টুলের মাধ্যমে কি ফ্রেমে ভাগ করে গুগলে রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। ফলাফলে সংবাদ মাধ্যম ‘সি এন এন তুর্ক’-এর ২০১৪ সালের ২৪ জুন তুর্কি ভাষায় প্রকাশিত প্রতিবেদনে এই ভিডিওর অনুসন্ধান পাওয়া যায়। জানা যায় এটি মসজিদ নয়, এটি সিরিয়ার রাক্কা শহরে অবস্থিত ভিসেল করানি সমাধি। জঙ্গি সংগঠন ‘ইসলামিক স্টেট অফ ইরাক অ্যান্ড দি লেভান্ট’ বোমা মেরে উরিয়ে দেয় এই সমাধিটি। 

সি এন এন প্রতিবেদনআর্কাইভ 

তুর্কি সংবাদ মাধ্যম ‘আবনা’-এর ২০১৪ সালের ৯ জুন প্রকাশিত এই ভিডিও কেন্দ্রিক প্রতিবেদন থেকেও একই কথা জানতে পারি। 

আবনা প্রতিবেদনআর্কাইভ 

প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড সার্চ এর মাধ্যমে সন্ত্রাসী সংঘটন ‘ইসলামিক স্টেট অফ ইরাক অ্যান্ড দ্যা লেভান্ট’ দ্বারা ধ্বংস করা তৎকালীন বিভিন্ন ধর্মীয় স্থান, দুর্গ এর সম্বন্ধে ‘মিন্ট’ একটি ভিডিও প্রস্তুত করেন। ভিডিও টি ‘মিন্ট’ এর ইউটিউব চ্যানেলে ২০১৫ সালের ২৬ অগস্ট আপলোড করা হয়েছে। ভিডিওতেও একই কথা বলা হয়েছে। 

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল ও ভিত্তিহীন। ২০১৪ সালে জঙ্গি সংগঠন আইসিস (ISIS) দ্বারা সিরিয়ায় একটি সমাধিস্তুপ ধ্বংস করার ঘটনাকে ভুয়ো দাবির সাথে ভাইরাল করা হচ্ছে।

Avatar

Title:২০১৪ সালে সিরিয়ায় সমাধিস্তুপ ধ্বংসের ঘটনাকে প্যালেস্তাইনের সাথে যুক্ত করে ভুয়ো ভিডিও ভাইরাল

Fact Check By: Nasim A 

Result: False


Leave a Reply

Your email address will not be published.