নবজাতক সন্তানকে দেখে মার্কিন সেনার আবেগি হওয়ার ভিডিওকে ইউক্রেনের ঘটনা বলে ভুয়ো দাবি করা হচ্ছে

False International

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে একটি ছবি পোস্ট শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, যুদ্ধক্ষেত্রে যাওয়ার আগে আবেগপ্রবন হলেন ইউক্রেনের সৈন্য। পোস্টের এই ভিডিওতে সামরিক বাহিনীর উর্দি পরিহিত একজন ব্যক্তি ছোট একটি শিশুকে কোলে নিয়ে কাঁদছেন এবং প্রেমিকাকে জড়িয়ে আলিঙ্গন করছেন।    

পোস্টের ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, “আবার দেখা হবে? আবার ছুয়ে দেখতে পাবো তোমাকে? অপেক্ষায় থাকবো? দিন? মাস? বছর? যুগ? পুরোটা জীবন? .. #ukraine #Nowar।” 

তথ্য যাচাই করে আমরা জানতে পারি পোস্টের দাবি ভুয়ো ও বিভ্রান্তিকর। মার্কিন সৈন্যের প্রথমবার তার নবজাতক পুত্রকে দেখে আবেগপ্রবন হওয়ার ভিডিওকে রুশ-ইউক্রেন বিবাদের সাথে জুড়ে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে।   

ফেসবুক পোস্ট  

তথ্য যাচাই 

এই দাবির সত্যতা যাচাই করতে আমরা ভিডিওটিকে ‘ইনভিড’ টুলের মাধ্যমে কি ফ্রেমে ভেঙ্গে গুগল, ইয়ান্ডেক্স সহ একাধিক সার্চ ইঞ্জিনে রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। ফলাফলে একাধিক ইউটিউব চানেলে ভাইরাল এই ভিডিওর একটি দীর্ঘ সংস্করণ খুঁজে পাওয়া যায়। ‘পোক মাই হার্ট’ নামের ইউটিউব চানেলে এই ভিডিওটি ২০১৮ সালে আপলোড করা হয়। ভিডিওর শীর্ষকে লেখা রয়েছে, “মেরিন প্রথমবারের জন্য নবজাতক পুত্রের সাথে দেখা করে।“ 

এখান থেকে স্পষ্ট হয়ে যাই, ভাইরাল ভিডিওটি সম্প্রতির নয় অর্থাৎ রুশ-ইউক্রেন সংঘর্ষের সাথে এর কোনও সম্পর্ক নেই। 

এই ভিডিওর আসল উৎসের সন্ধানে আমরা বিভিন্ন রকম প্রাসঙ্গিক কি ওয়ার্ড সার্চ করতে থাকি। একাধিক রাশিয়ান প্রতিবেদনে এই ঘটনার উল্লেখ পাওয়া যায়। ‘পপসুগার’ নামের একটি নিউজ পোর্টালে ২০১৮ সালে প্রকাশিত এই ভিডিও কেন্দ্রিক একটি প্রতিবেদন থেকে জানতে পারি আবেগপ্রবণ সৈন্যের নাম হল ব্রান্ডন ক্রেসপো। দীর্ঘ ৬ মাসের ডিউটি সেরে বাড়ি ফেরার পর প্রথম বারের মত ১ মাসের পুত্রসন্তানকে দেখে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন তিনি। 

আমেরিকার বিখ্যাত টক শো ‘টুডে শো’-এর অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডলে থেকে এই ভাইরাল ভিডিও ২০১৮ সালে পোস্ট করা হয়। টুইটের ক্যাপশনে লেখা হয়, “সামুদ্রিক সৈন্য ৬ মাস পরে দেশে ফিরে আসে এবং প্রথমবারের মতো তার নবজাতক পুত্রের সাথে দেখা করে।” 

ব্রান্ডন ক্রেসপো- এর স্ত্রী ফ্রান্সিস ক্রেসপো এর ইউটিউব চানেলেও এই ভিডিওটি দেখতে পাই। ২০১৮ সালে আপলোড করা এই ভিডিওর শিরোনামে লেখা হয়েছে, “মেরিন তার ছেলের সাথে প্রথমবারের মতো দেখা করে।“ 

তথ্য ও প্রমানের ভিত্তিতে প্রমানিত হয় ভাইরাল ভিডিওটির সাথে রুশ-ইউক্রেন যুদ্ধের সাথে কোন সম্পর্ক নেই। 

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল ও ভিত্তিহীন। মার্কিন সৈন্যের প্রথমবার তার নবজাতক পুত্রকে দেখে আবেগপ্রবন হওয়ার ভিডিওকে রুশ-ইউক্রেন বিবাদের সাথে জুড়ে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে।

Avatar

Title:নবজাতক সন্তানকে দেখে মার্কিন সেনার আবেগি হওয়ার ভিডিওকে ইউক্রেনের ঘটনা বলে ভুয়ো দাবি করা হচ্ছে

Fact Check By: Nasim A 

Result: False


Leave a Reply

Your email address will not be published.