অপ্রাসঙ্গিক কয়েকটি পুরনো ভিডিওকে একসাথে জুড়ে রুশ-ইউক্রেন যুদ্ধের দৃশ্য দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল 

False International

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে একটি ভিডিও শেয়ার করে সেটিকে রুশ-ইউক্রেন যুদ্ধের দৃশ্য বলে দাবি করা হচ্ছে। পোস্টের ৯ মিনিট ৫৭ সেকেন্ডের এই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, সামরিক বাহিনীর দল বন্দুক হাতে দ্রুত গতিতে অগ্রসর হচ্ছে। বিভিন্ন যুদ্ধ ট্যাঙ্ক থেকে রকেট বোমা ক্ষেপণ করা হচ্ছে।  

পোস্টের ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, “কিয়েভ অনেকটা নিয়ন্ত্রণে রাশিয়ার – ধরাশায়ী ইউক্রেন – রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধ।” 

তথ্য যাচাই করে আমরা জানতে পারি পোস্টের দাবি ভুয়ো ও বিভ্রান্তিকর। অপ্রাসঙ্গিক কয়েকটি পুরনো ভিডিওকে একসাথে জুড়ে রুশ-ইউক্রেন বিবাদের দৃশ্য দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে। 

ফেসবুক পোস্ট 

তথ্য যাচাই 

৯ মিনিট ৫৭ সেকেন্ডের এই ভিডিওটি ভালো করে পর্যবেক্ষণ করলে দেখা যায় কয়েকটি ভিন্ন ভিন্ন ভিডিও জুড়ে এটি বানানো হয়েছে।  

এই দাবির সত্যতা যাচাই করতে আমরা ভিডিওটিকে ইনভিড টুলের মাধ্যমে কিফ্রেমে ভেঙ্গে গুগল রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। ফলাফলে খুব সহজেই এই ভিডিওর আসল উৎস খুঁজে পাওয়া যায়। 

প্রথম ভিডিওঃ  

সামরিক বাহিনী কেন্দ্রিক ইউটিউব চ্যানেল ’মিলিটারি ফুটেজ আর্কাইভ’ নামের চ্যানেলে ভাইরাল ভিডিওর একটি অংশ খুঁজে পাই। ২০২১ সালের ১৮ অক্টোবর তারিখে আপলোড করা এই ভিডিওর শিরোনামে লেখা রয়েছে “মার্কিন ও জার্মান সৈন্যদের যৌথ যুদ্ধ মহড়া। সবুজ গ্রিফিন ২১।” 

ভিডিওর বর্ণনা অনুযায়ী এই ভিডিওটি ৪ অক্টোবর, ২০২১, তারিখের যখন মার্কিন সৈন্য বাহিনী ও জার্মান সৈন্য জার্মানির লেহনিনে গ্রিন গ্রিফিন ২১-এ একত্রিত হয়েছিল। 

এখানে জেনে রাখা ভালঃ গ্রিন গ্রিফিন 21 একটি বহুজাতিক যুদ্ধ প্রশিক্ষণ অনুশীলন ছিল যা ন্যাটো মিত্র এবং অংশীদার বাহিনীর স্কেল, সক্ষমতা এবং আন্তঃকার্যক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য পরিচালিত হয়েছিল।

এই সুত্র ধরে প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে জার্মানির সরকারি সংস্থার ফেসবুক পেজ Training Support Activity Europe-এ এই প্রশিক্ষন কেন্দ্রিক একটি পোস্ট খুঁজে পাই। ফেসবুক পোস্টটি দেখতে ক্লিক করুন এখানে। 

এই মহড়ার অন্যান্য ছবি দেখতে ক্লিক করুন এখানে। এই ছবিগুলির সাথে ভাইরাল ভিডিও হুবহু মিলে যায়। 

দ্বিতীয় ভিডিওঃ 

’জো বাইডেন নিউজ’ নামের ইউটিউব চ্যানেলে ২০২০ সালের ১১ সেপ্টেম্বর তারিখে আপলোড করা একটি ভিডিওকে এই কোলাজ ভিডিওতে ব্যবহার করা হয়েছে।

তৃতীয় ভিডিওঃ    

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের ১৭ অক্টোবর,২০২১, তারিখের প্রতিবেদনে একটি ভিডিওর উল্লেখ পাই। প্রতিবেদন অনুযায়ী ভিডিওটি জাপানের। জাপানের নতুন প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদাকে স্বাগত জানাতে সামরিক মহড়ার প্রদর্শনীর বলে জানানো হয়।  

প্রতিবেদন আর্কাইভ 

চতুর্থ ভিডিওঃ 

ডেইলি স্টার সংবাদমাধ্যমের ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১, তারিখের প্রতিবেদন অনুযায়ী ভিডিওটি রাশিয়ার। জানতে পারি যখন রুশ গ্রেনেড লঞ্চার এবং মেশিনগান দিয়ে সজ্জিত ভয়ঙ্কর নতুন যুদ্ধ রোবট সারা পৃথিবীর সামনে নিয়ে আসে এটি তখনকার ভিডিও। 

প্রতিবেদন আর্কাইভ 

তথ্য ও প্রমানের সাপেক্ষ্যে স্পষ্ট হয়ে যায় অপ্রাসঙ্গিক কয়েকটি পুরনো ভিডিওকে একসাথে জুড়ে রুশ ইউক্রেন বিবাদের দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে।  

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল ও ভিত্তিহীন। অপ্রাসঙ্গিক কয়েকটি পুরনো ভিডিওকে একসাথে জুড়ে রুশ-ইউক্রেন বিবাদের দৃশ্য দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে।

Avatar

Title:অপ্রাসঙ্গিক কয়েকটি পুরনো ভিডিওকে একসাথে জুড়ে রুশ-ইউক্রেন যুদ্ধের দৃশ্য দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল

Fact Check By: Rahul A 

Result: False


Leave a Reply

Your email address will not be published.