টোকিও অলিম্পিকে ‘অ্যান্টি সেক্স বেড’ তৈরি করার খবরটি ভুয়ো

False International

সম্প্রতি ফেসবুকে একটি পোস্ট শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, টোকিও আলিম্পিকে অংশগ্রহণকারী প্রতিযোগীদের যৌনসংগম রুখতে ‘অ্যান্টি সেক্স বেড’ নামে এক বিশেষ ধরনের বিছানা তৈরি করা হয়েছে। ‘নিউজ শর্টস’ নামে একটি নিউজ পোর্টাল থেকে এই মর্মে প্রতিবেদন প্রকাশ করে এই দাবি করা হচ্ছে। লিঙ্কের শিরোনামে লেখা রয়েছে, “অলিম্পিকে সেক্স ঠেকাতে তৈরি হল অ্যান্টি সেক্স বেড। থাম্বনেলে টোকিও ২০২০ লেখা চাদর মোড়ানো একটি বিছানার ছবি ও অলিম্পিক্সের লোগোর কোলাজ দেওয়া রয়েছে। শিরোনামেকেই পোস্টের ক্যাপশন হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে।  

তথ্য যাচাই করে আমরা জানতে পারি পোস্টের মাধ্যমে করা দাবিটি ভুয়ো। টোকিও অলিম্মিকে প্রতিযোগীদের জন্য ‘অ্যান্টি সেক্স বেড’ বানানোর খরবটি ভিত্তিহীন বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

ফেসবুক আর্কাইভ 

উল্লেখ্য, ২৩ জুলাই থেকে শুরু হচ্ছে টোকিও অলিম্পিক গেমস ২০২০। করোনা কোপে গত বছর বাতিল হয়ে যায় অলিম্পিক্স। কিন্তু এই বছর করোনার কোপ কমতেই টোকিয়োতে আয়োজন করার সিদ্ধান্ত নেয় অলিম্পিক্স আয়োজক সংস্থা। গ্যালারি থাকবে দর্শক শূন্য। টোকিয়োর গেমস ভিলেজে পৌঁছছেন বিভিন্ন দেশের খেলোয়াড়।  

তথ্য যাচাই

এই দাবির সত্যতা যাচাই কিওয়ার্ড সার্চ দিয়ে শুরু করি। ফলাফলে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে ‘অ্যান্টি সেক্স বেড’র উল্লেখ পাওয়া যায়। ‘দ্যা নিউ ইয়র্ক টাইমস’-এর ১৯ মে’র একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, রিও অলিম্পিক (২০১৬) ৫০০০ মিটার দৌড়ে সিলভার মেডেল বিজয়ী ‘পল কেলিমো’ এই বিশেষ বেড নিয়ে বেশ কয়েকটি টুইটের একটি থ্রেড শেয়ার করেন। প্রথম টুইটে বলেন, “টোকিও অলিম্পিক ভিলেজে প্রদান করা শয্যাগুলি কার্ডবোর্ড দিয়ে তৈরি করা হবে, অ্যাথলিটদের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা এড়ানোই এর লক্ষ্য। বিছানাগুলি শুধুমাত্র একজন ব্যক্তির ওজন সহ্য করতে পারবে। 

তার এই টুইট মুহূর্তে ভাইরাল হয়ে যায় এবং একে কেন্দ্র করে সোশ্যাল মিডিয়াতে টোকিও অলিম্পিলে ‘অ্যান্টি সেক্স বেড’ বানানোর খবর রটে যায়। 

আয়ারল্যান্ডের জিমন্যাস্ট ‘রাইস ম্যাকক্লেনাঘন’ এই দাবিটিকে ‘ভুয়ো খবর’ বলে অভিহিত করেন। তিনি টুইটারে একটি ভিডিও পোস্ট করে অলিম্পিক ভিলেজে দেওয়া শজ্যার ওপর লাফিয়ে ঝাঁপিয়ে দেখান যে একজনের বেশি ওজন সহ্য করার ক্ষমতা রাখে। 

এরপর অফিসিয়াল অলিম্পিকের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে ম্যাকক্লেনাঘনের ভিডিওটি রিটিউট করে বলা হয়, এই গুজবকে ভুয়ো প্রমাণ করার জন্য ধন্যবাদ। আপনি ম্যাকক্লেনাঘানের কাছ থেকেই শুনলেন কার্ডবোর্ডের শয্যাগুলি যথেষ্ট মজবুত। 

সংবাদ মাধ্যম ‘এনডিটিভি’-এর প্রতিবেদন থেকেও একই কথা জানা যায়। টোকিও অলিম্পিক ভিলেজে ‘অ্যান্টি সেক্স বেড’ বানানোর খবরটি আসলে গুজব। 

এন ডি টিভি প্রতিবেদন আর্কাইভ 

সংবাদ মাধ্যম ‘সিএনবিসি’-এর প্রতিবেদন থেকে জানতে পারি, টোকিও অলিম্পিক এবং প্যারালিম্পিক গেমসে অ্যাথলেটদের জন্য ব্যবহৃত শয্যাগুলি আংশিক পুনর্ব্যবহারযোগ্য কার্ডবোর্ড দিয়ে তৈরি। ৯ জানুয়ারি জাপানের টোকিওতে একটি সাংবাদিক সম্মেলনের সময় প্রতিযোগীদের জন্য বানানো শয্যার নমুনা সামনে আনা হয়। টোকিও অলিম্পিকের জন্য মোট ১৮০০০ বেড তৈরি করা হবে। 

সি এন বিসি প্রতিবেদন আর্কাইভ 

এই সমস্ত তথ্য দেখার পর স্পষ্ট বলা যায়, টোকিও অলিম্পিক শয্যার সাথে যৌন সঙ্গমের আটকানোর কোনও সম্পর্ক নেই।

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল ও ভিত্তিহীন। টোকিও অলিম্মিকে প্রতিযোগীদের জন্য ‘অ্যান্টি সেক্স বেড’ বানানোর খরবটি ভিত্তিহীন বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

Avatar

Title:টোকিও অলিম্পিকে ‘অ্যান্টি সেক্স বেড’ তৈরি করার খবরটি ভুয়ো

Fact Check By: Nasim A 

Result: False


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *