গনপিটুনি দেওয়া হল নুপুর শর্মাকে? পুরনো ছবিকে ভুয়ো দাবির সাথে শেয়ার 

False Social

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে তিনটি ছবি শেয়ার করে দাবি করে দাবি করা হচ্ছে, হজরত মহম্মদের সম্পর্কে কটূক্তির জেরে গনপিটুনির শিকার হল নুপুর শর্মা। পোস্টের ছবিতে দেখা যাচ্ছে নুপুর শর্মা ভিড়ের মাঝে দাড়িয়ে রয়েছে। 

পোস্টের ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, “#আলহামদুলিল্লাহ 👠 নুপুর শর্মাকে দিল্লির এক মার্কেটে শপিং করার সময় গণধোলাই এবং পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে বেঁচে যায়। 👠 দুনিয়াতে অপমান শুরু হয়েছে আখেরাতে জাহান্নাম। 🤣 আলহামদুলিল্লাহ 😁।”    

তথ্য যাচাই করে আমরা জানতে পারি পোস্টের দাবি ভুয়ো ও বিভ্রান্তিকর। ২০০৮ সালে প্রফেসর এসএআর গিলানির বিরুদ্ধে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শনের পুরনো ছবিকে সম্প্রতির ঘটনা দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে। 

ফেসবুক পোস্ট আর্কাইভ 

উল্লেখ্য, গত মাসের ২৭ তারিখ বিজেপির মুখপাত্র নুপুর শর্মা জাতীয় খবরের চ্যানেলে ইসলাম ধর্মের নবী হজরত মহম্মদ ও তার স্ত্রী আয়েশা সম্পর্কে একটি বিতর্কিত মন্তব্য করে। এই ঘটনার পর দেশের বিভিন্ন যায়গায় অশান্তির পরিবেশ সৃষ্টি হয়। 

তথ্য যাচাই 

এই দাবির সত্যতা যাচায় করতে আমরা ছবিটিকে গুগল্ রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। স্টক ইমেজ সংস্থা গেট্টী ইমেজেস-এর গ্যালারীতে এই ছবির অনুসন্ধান পাওয়া যায়। ছবি গুলির বর্ণনা স্বরুপ লেখা রয়েছে ২০০৮ সালের ৬ নভেম্বর তারিখে নুপুর শর্মা, প্রফেসর  গিলানির লেকচার চলাকালীন তার বিরুধে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে।  

প্রথম ছবি

দ্বিতীয় ছবি

তৃতীয় ছবি

প্রসঙ্গত, ২০০১ সালে সাংসদ হামালায় অভিযুক্ত ছিলেন জাকির হুসেন কলজের লেকচারার এসএআর গিলানি। ২০০৮ সালের ৬ নভেম্বর তারিখে তারিখে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে সাম্প্রদায়িকতার বিষয়ে বক্তব্য রাখার জন্য তাকে আহ্বান করা হয়েছিল। দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি এবং এবিভিপি সংগঠনের সদস্য নুপুর শর্মা ও অন্যান্য সদস্যরা  তৎকালীন সময়ে প্রফেসরের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন এখানে। 

প্রতিবেদন আর্কাইভ 

গুগল সহ ইউটিউবে প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে জানতে পারি, এই মন্তব্যের পর থেকে নুপুর শর্মাকে মেরে ফেলার হুমকি পেতে থাকে। কোনও প্রতিবেদনেই নুপুর শর্মাকে মারধরের কোন প্রতিবেদনই আমরা খুঁজে পাইনা। 

তথ্য প্রমানের ভিত্তিতে প্রমানিত হয় বিক্ষোভরত নুপুর শর্মার পুরনো ছবিকে হজরত মহম্মদ বিতর্কের সাথে জুড়ে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে। 

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিস্যান্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল ও ভিত্তিহীন। ২০০৮ সালে প্রফেসর এসএআর গিলানির বিরুদ্ধে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শনের পুরনো ছবিকে সম্প্রতির ঘটনা দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে।   

Avatar

Title:গনপিটুনি দেওয়া হল নুপুর শর্মাকে? পুরনো ছবিকে ভুয়ো দাবির সাথে শেয়ার

Fact Check By: Rahul A 

Result: False


Leave a Reply

Your email address will not be published.