১৯৮৯ সালের রাম মন্দিরের ভূমি পুজোর ভুয়ো ছবি ভাইরাল করা হচ্ছে

False Social

৫ই অগস্ট প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উপস্থিতিতে রাম মন্দিরের ভূমি পুজো শেষ হলেও এই পুজো নিয়ে ফেক-নিউজে ইতি এখনও পরে নি। সোশ্যাল মিডিয়ায় দুটি সাদা-কালো ছবি শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, ১৯৮৯ সালে সালে রাম মন্দিরের ভূমি পূজন হয়ে গিয়েছিল। এই দুটি ছবির একটিতে দেখা যাচ্ছে কয়েকজন সাধু গোছের মানুষ হাতে একটি ইট ধরে আছেন এবং ইটের ওপর হিন্দি ভাষায় লেখা, ‘রামশিলা’। দ্বিতীয় ছবিটিতে দেখা যাচ্ছে ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী আরও কয়েকজনের সাথে দাঁড়িয়ে আছেন।

এই পোস্টটির ক্যাপশনে লেখা আছে, “দেখুন 1989 সালেই রাম মন্দিরের ভূমি পূজন হয়ে গিয়েছিল। তাহলে এখন কি হলো ?” ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো তথ্য যাচাই করে দেখতে পেয়েছে এই দাবিটি ভুয়ো।

download (5).png
ফেসবুক আর্কাইভ 

তথ্য যাচাই

ছবি ১ 

116711828_969174530177848_5850119247292422146_n.jpg

গুগলে রিভার্স ইমেজ সার্চ করে এই ছবিটির ওপর আমরা অনেকগুলি প্রতিবেদন দেখতে পাই। ‘টাইমস অফ ইন্ডিয়ার’ একটি প্রতিবেদন (আর্কাইভ) থেকে জানতে পারি, ২০০২ সালে অটল বিহারি বাজপেয়ী প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন তৎকালীন বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সভাপতি অশোক সিঙ্ঘল দেশব্যাপী করসেবক সৈন্য সমাবেশের ডাক দেন। তিনি হুমকি দেন, রাম মন্দিরে সুপ্রিম কোর্টের স্থিতাবস্থার নির্দেশ অমান্য করে রামের জন্মভূমিতে ‘শিলাদান’ করবেন। পরে বাজপেয়ী বিষয়টতে হস্তক্ষেপ করেন এবং বিতর্কিত রাম জন্মভুমি থেকে এক কিলোমিটার দূরে দিগন্ত আখাড়ায় শিলাদান করেন অশোক সিঙ্ঘল। এটি ওই শিলাদানেরই ছবি, ১৯৮৯ সালের ভূমিপুজোর নয়। 

download (6).png

ছবি ২ 

117288767_969174596844508_8929100060840363213_n.jpg

এই ছবিটিকে গুগলে রিভার্স ইমেজ সার্চ করে উইকিমিডিয়া (আর্কাইভ) ওয়েবসাইট থেকে জানতে পারি, ১৯৮৯ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীকে ‘সোভিয়েত হরে কৃষ্ণ’ ভক্তদের তরফে ইসকোন মন্দিরে রাশিয়ান ভাষার গীতা উপহার করা হয়েছিল। এটি তারই  ছবি। 

ইসকন মন্দিরের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটেও (আর্কাইভ) আমরা এই ছবিটি খুব সহজেই পেয়ে যাই। 

download (7).png

পোস্টে আরও দাবি করা হয়েছে ‘১৯৮৯ সালে সালে রাম মন্দিরের ভূমি পূজন হয়ে গিয়েছিল’। কিওয়ার্ড সার্চ করে সংবাদমাধ্যম ‘এই সময়’-এর একটি প্রতিবেদন (আর্কাইভ) থেকে জানা যায়,
“১৯৮৯ সালের লোকসভা ভোটের ১৪ দিন আগে ৮ ও ৯ নভেম্বর ভূমিপুজো ও শিলান্যাস হয়। যদিও তখন সেই জায়গা নিয়ে বিবাদ চলছে। সেখানে শিলান্যাস যাতে না হয় সেজন্য তদানীন্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী, তাঁর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বুটা সিং এবং তদানীন্তন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী নারায়ণ দত্ত তিওয়ারি বৃন্দাবনে মাচানবাবার কাছে গিয়েছিলেন। হিন্দি বলয়ে মাচানবাবাই তখন এক নম্বর ‘বাবা’। তিনি কিন্তু বলেন, শিলান্যাস করতে দাও। রাজীব গান্ধী সে কথা অমান্য করতে পারেননি। শিলান্যাস হয়েছিল। যার জেরে ভাগলপুরে বিরাট সংঘর্ষ বেধে যায়। ১৯৯০ সালের ২৬ জানুয়ারি আরএসএসের মুখপত্র অরগানাইজারে সম্পাদক কে আর মালকানি লিখেছিলেন, ‘It was a trap laid before the congress. If shilanyas was disallowed hindu voters would have gone against congress. When it was allowed muslim voters went against it.’”

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রসেন্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিতি ভুল। রাম মন্দির নিয়ে বিতর্ক চলাকালীনই ১৯৮৯ সালে ‘শিলান্যাস’ ও ‘ভূমিপুজো’ হয়েছিল ঠিকই কিন্তু এগুলি তার ছবি নয়। দুটি ভিন্ন জায়গা থেকে ছবি তুলে ভুয়ো দাবি করে পোস্টটি শেয়ার করা হয়েছে। 

Avatar

Title:১৯৮৯ সালের রাম মন্দিরের ভূমি পুজোর ভুয়ো ছবি ভাইরাল করা হচ্ছে

Fact Check By: Rahul A 

Result: False


Leave a Reply

Your email address will not be published.