২০১৯ সালে অপরাধী আল্লারাখাকে ধরার ঘটনাকে সম্প্রতির দাবি করা হচ্ছে

Missing Context Political

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, সম্প্রতি গুজরাটের একটি মহিলা পুলিশ দল জুনাগড়ের অপরাধী জুসাব আল্লারাখাকে গ্রেফতার করেছে। ছবিতে দেখা যাচ্ছে চারজন মহিলা বন্দুক হাতে দাড়িয়ে রয়েছে এবং সামনে একজন লোক হাত বাধা অবস্থায় মাটিতে বসে রয়েছে। পোস্টের ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, “এটি কোনও সিনেমার দৃশ্য নয় গুজরাট ATS মহিলা দলটি আজ বোটাড থেকে কুখ্যাত সন্ত্রাসী জুনারগড়ের আল্লার খাকে ধরেছে … যে দলটি এই অপারেশনটি সম্পন্ন করেছে তারা ছিল একটি মহিলা পুলিশ দল … এই সাহসী বোনদের শুভেচ্ছা। জয় শ্রী রাম”।

তথ্য যাচাই করে দেখতে পেয়েছি এই দাবি ভিত্তিহীন এবং বিভ্রান্তিকর। ২০১৯ সালের ছবিকে সম্প্রতির ঘটনা দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে। 

Gujrat ATS.png
ফেসবুক আর্কাইভ

উল্লেখ্য, জুসাব আল্লারাখা সান্ধ গুজরাটের একজন কুখ্যাত অপরাধী। খুন, তোলাবাজি, পুলিশের ওপর গুলি চালানোর মতো গুরুতর ২৩টি মামলায় অভিযুক্ত। বোটাড, ভাবনগর, রাজকোট এলাকার ত্রাস হয়ে দাঁড়িয়েছিল জুসাব। বলিউড ছবির ভিলেনদের আদলে নিজেকে নিয়ে একটি ভয়ের পরিবেশ তৈরি করে রেখেছিলেন তিনি।

তথ্য যাচাই

এই দাবির সত্যতা যাচাই করতে ছবিটিকে গুগলে রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। ফলাফলে, সংবাদমাধ্যম ‘ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস’র একটি প্রতিবেদনে এই ছবিটি দেখতে পাই। ২০১৯ সালের ৯ মে’র এই প্রতিবেদন থেকে জানতে পারি, গুজরাত পুলিশের সন্ত্রাস দমন শাখা (এটিএস) সদস্যরা ধরে ফেলেন কুখ্যাত ডন জুসাব আল্লারাখা সান্ধকে ৷ তার বিরুদ্ধে অসংখ্য খুন, ছিনতাই, ডাকাতির অভিযোগ রয়েছে ৷ বাতোদ জেলার এক জঙ্গল থেকে এই কুখ্যাত অপরাধীকে গ্রেফতার করেন পাঁচ পুলিশ অফিসারের একটি দল যার মধ্যে চারজনই মহিলা । তাদের নাম হল ওদেরা, নিতমিকা গোহিল, অরুণা গামেতি এবং সিম্মি মাল।

Jusab Allarakha arrested.png
প্রতিবেদনআর্কাইভ

সংবাদমাধ্যম ‘এই সময়’র একটি প্রতিবেদনেও এই ছবিটি দেখতে পাই। অন্যদিকে, সংবাদ সংস্থা ‘এএনআই’র ২০১৯ সালের ৬ মে তারিখের একটি টুইটে এই ঘটনার খবর দেখতে পাওয়া যায়।

 নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল। ২০১৯ সালে কুখ্যাত ডন জুসাব আল্লারাখাকে ধরার ছবিকে সম্প্রতির ঘটনা দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে।

Avatar

Title:২০১৯ সালে অপরাধী আল্লারাখাকে ধরার ঘটনাকে সম্প্রতির দাবি করা হচ্ছে

Fact Check By: Nasim A 

Result: Missing Context


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *