রুশ রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিনের ইসলাম ধর্মকে দ্বিতীয় রাষ্ট্রীয় ধর্ম ঘোষণা করার খবরটি ভুয়ো 

False International

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে একটি পোস্ট শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, ইসলাম ধর্মকে রাশিয়ার দ্বিতীয় রাষ্ট্রীয় ধর্ম হিসেবে স্বীকৃতি দিল রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন। পোস্টের ছবিতে দেখা যাচ্ছে রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন সারিবদ্ধ ভাবে কয়েকজন ধর্মযাজকদের মাঝে দাড়িয়ে রয়েছেন। 

পোস্টের ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, “*ভারতীয় ইতিহাসে এই প্রথমবার* “` 👉ভারতের মুসলমানরা প্রতিনিয়ত সরকারিভাবে চুড়ান্ত জুলুম নির্যাতনের শিকার,, অন্যদিকে প্রেসিডেন্ট পুতিন ইসলামকে রাষ্ট্রীয়ভাবে দ্বিতীয় ধর্মের স্বীকৃতি দিলেন। শরিয়ত মেনে চলার সম্পূর্ণ স্বাধীনতা দিলেন রাশিয়ার মুসলমানদের 💕 subhanallah 🥰🇷🇺🇷🇺🇷🇺।”  

তথ্য যাচাই করে আমরা জানতে পারি পোস্টের দাবি ভুয়ো ও বিভ্রান্তিকর। ১০ বছরের পুরনো ছবি শেয়ার করে ইসলাম ধর্মকে রুশের দ্বিতীয় রাষ্ট্রীয় ধর্ম স্বীকৃতি দেওয়ার দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে। 

ফেসবুক পোস্ট আর্কাইভ 

তথ্য যাচাই 

এই দাবির সত্যতা যাচাই করতে আমরা গুগল সহ রাশিয়ান সার্চ ইঞ্জিন ইয়ান্ডেক্সে প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড সার্চ করি। ফলাফলে, ইসলাম ধর্মকে দ্বিতীয় রাষ্ট্রীয় ঘোষণা করার কোনও প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায় না। ধর্ম কেন্দ্রিক এত বড় ঘোষণা কোন প্রতিবেদন না পেয়ে প্রায় নিশ্চিত ভাবে বলা যায় ভাইরাল পোস্টের দাবিটি বিভ্রান্তিকর। 

তারপর আমরা রাশিয়ার সংবিধান খুঁজে দেখতে পাই, রাশিয়ার কোন রাষ্ট্রীয় ধর্ম নেই। রাশিয়া সংবিধানের ১৪ নম্বর ধারাতে স্পষ্ট বলা হয়েছে, “রাশিয়ান ফেডারেশন একটি ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র। কোনও রাষ্ট্র ধর্ম নেই বা রাষ্ট্রের অধীনে কোনও ধর্ম নেই। ধর্মীয় সমিতিগুলো রাষ্ট্র থেকে বিচ্ছিন্ন এবং আইনের চোখে সবাই সমান।” 

এখান থেকে প্রমানিত হয় ভাইরাল পোস্টের দাবির কোনও ভিত্তি নেই। এটি আসলে একটি গুজব। 

তাহলে ছবিটি কখনকার? 

এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে ছবিটিকে গুগল রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। ফলাফলে, সংবাদমাধ্যম  ‘রাশিয়া বিয়ন্ড’ নামের প্রতিবেদন অনুযায়ী ছবিটি ২০১২ সালের, যখন প্রেসিডেন্ট পুতিন মুসলিম ধর্মযাজকদের সাথে সাক্ষাৎ করেছিলেন। 

সংবাদমাধ্যম ডন-এর ২৯ অগস্ট, ২০১২, তারিখের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ভাইরাল ছবিটির মাঝখানে হুইলচেয়ারে বসে থাকা লোকটির নাম হল মুফতি ইলদুস ফাইজভ। প্রসঙ্গত, মুফতি ইলদুস ফাইজভ হলেন তাতারস্তানের প্রধান মুফতি। ওই বছরের জুলাই মাসে মুফতির গাড়িতে বিস্ফোরক যন্ত্রের মাধ্যমে হামলা করা হয়েছিল যার ফলে তার পা আহত হয়। রাষ্ট্রপতি পুতিন তৎকালীন সময় অর্থাৎ ২০১২ সালের ২৮ আগস্ট তারিখে মুফতি ইলদুস ফাইজভের বাসবভবন বালগারে গিয়ে একটি পদক প্রদান করেছিলেন এবং এই হামলার নিন্দা করেছিলেন। 

তাতারস্তান রিপাবলিকের সরকারি পোর্টালেও এই সাক্ষাৎকার কেন্দ্রিক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছিল। 

উপরোক্ত তথ্য এবং প্রমাণ থেকে স্পষ্ট হয়ে যায় রুশে ইসলামকে দ্বিতীয় রাষ্ট্রীয় ধর্ম হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিস্যান্ডো সিদ্ধান্তে এ1সেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল ও ভিত্তিহীন। ১০ বছরের পুরনো ছবি শেয়ার করে ইসলাম ধর্মকে রুশের দ্বিতীয় রাষ্ট্রীয় ধর্ম স্বীকৃতি দেওয়ার দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে।

Avatar

Title:রুশ রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিনের ইসলাম ধর্মকে দ্বিতীয় রাষ্ট্রীয় ধর্ম ঘোষণা করার খবরটি ভুয়ো

Fact Check By: Nasim A 

Result: False


Leave a Reply

Your email address will not be published.