পাকিস্তানে চোরাই পণ্য পুড়িয়ে দেওয়ার ভিডিওকে আফগানিস্তানের ঘটনা দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল

False International

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে একটি ভিডিও শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, আফগানিদের মোবাইল ফোন ভেঙ্গে দিচ্ছে তালিবান। পোস্টের ২২ সেকেন্ডের এই  ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে একটি জায়গায় নিচে অনেকগুলি স্মার্টফোন পড়ে রয়েছে। কয়েকজন লোক ফোনগুলিকে পা দিয়ে এক দিকে সরাচ্ছে। পোস্টের ক্যাপশনে লেখা রয়েছে – আফগানিস্তানে স্মার্ট ফোন নিষিদ্ধ 🚫 এটাকে শয়তানের চোখের মণি বলে ঘোষনা 💗 ইমারাতে ইসলামিয়্যাহ জিন্দাবাদ 💗💗💗। 

তথ্য যাচাই করে আমরা জানতে পারি পোস্টের দাবি ভুয়ো ও বিভ্রান্তিকর। পাকিস্তান শুল্ক বিভাগীয় পুলিশ দ্বারা চোরাচালিত পন্য ধ্বংস করার ভিডিওকে তালিবানের সাথে জুড়ে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে। 

ফেসবুক পোস্ট 

তথ্য যাচাই 

এই দাবির সত্যতা যাচাই করতে আমরা ভিডিওটিকে ভালো করে লক্ষ্য করি। যেই ব্যক্তি পা দিয়ে মোবাইলগুলি সরাচ্ছে তার উর্দিতে থাকা ব্যাজকে জুম করে দেখে স্পষ্ট দেখা যায় সেটি আসলে পাকিস্তানের জাতীয় পতাকা। 

এরপর ভিডিওটিকে ‘ইনভিড-উই-ভেরিফাই’ টুলের মাধ্যমে কি-ফ্রেমে ভেঙ্গে গুগল রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। ফলাফলে ‘সিকান্দার আলি কালহোরো’ নামের একটি ফেসবুকে প্রোফাইলে এর অনুসন্ধান পাই। ওই প্রোফাইল থেকে একটি একটি ভিডিও প্রতিবেদন শেয়ার করা হয় যেখানে ভাইরাল ভিডিওটি দেখতে পাওয়া যায়। ২০২১ সালের ৩০ ডিসেম্বর তারিখে পোস্ট করা এই ভিডিও প্রতিবেদন থেকে জানতে পারি, পাকিস্তানের শুল্ক বিভাগীয় পুলিশ, কারাচি, ২ আরব ৪৭ লক্ষ টাকার পন্য জ্বালিয়ে দেয়। এর মধ্যে ৬৩ কোটি ১৫ লক্ষ্য টাকার মোবাইল ফোন এবং ১৮ কোটি ৬৮ লক্ষ্য টাকার মদ সামিল ছিল। 

এই ভিডিও থেকে সূত্র নিয়ে ইউটিউবে প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড সার্চ করে পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম ‘জিও নিউজ’ এর একটি ভিডিও উপস্থাপনায় এই একই খবর দেখতে পাই। ২০২১ সালের ২৯ ডিসেম্বর এই ভিডিও আপলোড করা হয় যার ক্যাপশনে লেখা রয়েছে – কোটি টাকার চোরাই পণ্য জালিয়ে দিল কাস্টমস বিভাগ।

এই সুত্র ধরে ইউটিউবে প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড সার্চ করি। ‘এসএসকে কারাচি’ নামের এক ইউটিউব চ্যানেলে ২৯ ডিসেম্বর, ২০২১, তারিখে আপলোড করা একটি ভিডিও খুঁজে যার শিরোনামে লেখা রয়েছে – “পাকিস্তান কাস্টমস ৩ বিলিয়ন টাকার চোরাচালান পণ্য ধ্বংস করেছে। 

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে অনেকগুলো মদের বোতল ও মোবাইল ফোন মাটিতে রাখা আছে। ভিডিওর ৪০ সেকেন্ডে দেখা যাচ্ছে দেখা যাচ্ছে কয়েকজন পুলিশ কর্মী মোবাইলগুলিকে পা দিয়ে সরাচ্ছে। পেছনে থাকা ট্রাকের ট্রলি এবং তার পাশে পরে থাকা ভর্তি বস্তা ভাইরাল ভিডিওতেও রয়েছে। স্পষ্ট হয়ে যায় ভাইরাল ভিডিওটি ও এই ভিডিওটি একই স্থানের। 

আরেকটি ইউটিউব ভিডিও খুঁজে পাই যেখানে কাস্টমস পুলিশ একত্রিত হয়ে মদের বদল সহ অন্যান্য পণ্যে আগুন লাগাচ্ছে। 

সংবাদমাধ্যম ‘ভাইস’-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী ২০২১ সালের ২৯ ডিসেম্বর তারিখে একটি অনুষ্ঠান আয়জনের মাধ্যমে প্রায় ১৪ মিলিয়ন টাকার চোরাচালিত পণ্য পুড়িয়ে দেয় পাকিস্তান শুল্ক বিভাগ। 

প্রতিবেদন আর্কাইভ 

বিভিন্ন প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে আফগানিস্তানে মোবাইল নিষেধাজ্ঞা সম্পর্কে কোন প্রতিবেদন খুঁজে পাইনি। তথ্য প্রমানের সাপেক্ষে স্পষ্ট হয়ে যাই মোবাইল ভেঙ্গে ফেলার এই ভিডিওটি আফগানিস্তানের নয়, পাকিস্তানের। 

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল ও ভিত্তিহীন। পাকিস্তান শুল্ক বিভাগীয় পুলিশ দ্বারা চোরাচালিত পন্য ধ্বংস করার ভিডিওকে তালিবানের সাথে জুড়ে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে।

Avatar

Title:পাকিস্তানে চোরাই পণ্য পুড়িয়ে দেওয়ার ভিডিওকে আফগানিস্তানের ঘটনা দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল

Fact Check By: Nasim A 

Result: False


Leave a Reply

Your email address will not be published.