‘মোদীর সভায় কালো পতাকা দেখানোর পর রীতা যাদবকে হত্যা’- খবরটি ভুয়ো

False Political

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে একটি ছবি শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, নরেন্দ্র মোদীকে কালো পতাকা দেখানোয় বিক্ষোভ প্রদর্শনকারী রীতা যাদবকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। পোস্টের ছবিতে দেখা যাচ্ছে, একটি হাসপাতালের বেডে একজন মহিলা শুয়ে রয়েছেন এবং তাকে ঘিরে দাড়িয়ে রয়েছে কয়েকজন লোক দাড়িয়ে রয়েছে। ছবির ওপরে লেখা রয়েছে, “চেনেন মেয়েটিকে। নাম রীতা যাদব। অপরাধ পানীয় জলের জন্য আন্দোলন। প্রধানমন্ত্রীকে কালো পতাকা দেখিয়ে ছিল। আজ লাশ হয়ে মর্গে। হাঁ এটাও যোগীরাজ্যের ঘটনা।” 

পোস্টের ক্যাপশনে লেখা রয়েছে – ধিক্কার ধিক্কার ধিক্কার প্রধানমন্ত্রী নাকি মৃত্যু মুখ থেকে ফিরে এসেছে বলে আপশোষ করছিল, রীতা যাদব লাশ হয়ে গেছে।ধিক্কার ধিক্কার ধিক্কার প্রধানমন্ত্রী নাকি মৃত্যু মুখ থেকে ফিরে এসেছে বলে আপশোষ করছিল, রীতা যাদব লাশ হয়ে গেছে।

তথ্য যাচাই করে আমরা জানতে পারি পোস্টের দাবি ভুয়ো ও বিভ্রান্তিকর। কংগ্রেস নেত্রী রীতা যাদব বেঁচে আছেন এবং বাড়িতে সুস্থ রয়েছেন। 

ফেসবুক পোস্ট আর্কাইভ 

উল্লেখ্য, সমাজবাদি পার্টির নেত্রী ছিলেন রীতা যাদব। ২০২১ সালের ১৯ ডিসেম্বর তিনি জাতীয় কংগ্রেসে যোগদান করেন। গত বছরের ১৫ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী উত্তরপ্রদেশের সুলতানপুর বিধানসভা অঞ্চলে ভোট প্রচারে যান। সেখানে তিনি পূর্বাঞ্চল এক্সপ্রেসওয়ের উদ্বোধন করেন। সেখানে সমাজবাদি পার্টির প্রাক্তন  নেত্রী রীতা যাদব নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে কালো পতাকা দেখিয়ে প্রদর্শন করেন। 

তথ্য যাচাই 

এই দাবির সত্যতা যাচাই করতে আমরা গুগলে প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড সার্চ করি। ফলাফলে, একাধিক মুখ্যধারার সংবাদমাধ্যমে রীতা যাদবের ভাইরাল এই ছবির অনুসন্ধান পাই। সংবাদমাধ্যম ‘গ্রাউন্ড রিপোর্ট’-এর ৩ জানুয়ারী, ২০২২, তারিখের প্রতিবেদন থেকে জানতে পারি, প্রধানমন্ত্রীকে কালো পতাকা দেখিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শনের পরে বোলেরো গাড়িতে তিনি বাড়ি ফিরছিলেন। যাত্রাপথে  ৩ জন দুষ্কৃতি তার গাড়ি ঘিরে ফেলে এবং তার দিকে কেন্দ্র করে গুলি ছোড়ে। গুলি তার ডান পায়ে লাগে এবং তৎক্ষণাৎ রীতাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এই ঘটনার পর স্থানীয় পুলিশ জানিয়েছেন, কংগ্রেস নেত্রী সুস্থ আছেন। 

প্রতিবেদন আর্কাইভ 

হাসপাতালের বিছানা শয্যাশায়ী অবস্থায় সংবাদমাধ্যম ‘দি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস’-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, “আমি এক্সপ্রেসওয়ে পুনরায় উদ্বোধন করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি অসন্তুষ্ট ছিলাম কারণ সমাজবাদি পার্টির সরকার আগেই এই সড়কের উদ্বোধন করেছিল। এই কারণেই বিক্ষোভ দেখাতে আমি কালো পতাকা ধরেছিলাম। এরপর পুলিশ আমাকে গ্রেফতার করে এবং আমি প্রায় এক সপ্তাহ জেলে ছিলাম।” প্রতিবেদনটি পড়ুন এখানে। 

সংবাদমাধ্যম “সি দি পিপল”-এর ৪ জানুয়ারী,২০২২, তারিখের প্রতিবেদন থেকেও একই কথা জানতে পারি। 

প্রতিবেদনআর্কাইভ 

ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো সুলতানপুরের অ্যাডিসনাল এস পি বিপুল কুমার শ্রীবাস্তব-এর সাথে যোগাযোগ করে। পোস্টের দাবি খণ্ডন করে তিনি আমাদের জানান, “রীতা যাদব বেঁচে আছেন ও সুস্থ আছেন। তিনি বর্তমানে বাড়িতেই রয়েছেন। সোশ্যাল মিডিয়াএ দাবি একেবারেই ভুল।”

এরপর আমরা উত্তর প্রদেশ কংগ্রেসের সোশ্যাল মিডিয়া স্টেট কো-অর্ডিনেটর ভিকে সিংহ-এর সাথে যোগাযোগ করি। তিনি আমাদের জানান, “রীতা যাদবকে গুলি মারা হয়েছিল এবং তিনি এখন সুস্থ রয়েছেন।“

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল ও ভিত্তিহীন। কংগ্রেস নেত্রী রীতা যাদব বেঁচে আছেন এবং বাড়িতে সুস্থ রয়েছেন।

Avatar

Title:‘মোদীর সভায় কালো পতাকা দেখানোর পর রীতা যাদবকে হত্যা’- খবরটি ভুয়ো

Fact Check By: Nasim A 

Result: False


Leave a Reply

Your email address will not be published.