রামনাথ কোভিন্দের মেয়ে এয়ার হোস্টেস থেকে গ্রাউন্ড ডিপার্টমেন্টে স্থানান্তরিত করেনি টাটা গোষ্ঠী

National Partly False

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে একটি ছবি শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, এয়ার হোস্টেস হিসেবে কর্মরত স্বাতির বাবা রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোভিন্দ জানতে পারার পর তাকে অফিসের কাজে নিযুক্ত করলো টাটা এয়ার ইন্ডিয়া কোম্পানি। পোস্টের ছবিতে দেখা যাচ্ছে ভারতীয় রাষ্ট্রপতি একজন যুবতীকে ফুলের গোছা প্রদান করে অভিবাদন জানাচ্ছেন।  

পোস্টের ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, “🙏এক নিরহংকার বিমান সেবিকা ও পরিবারের কথা।🙏 🙏নাম তাঁর স্বাতী। দেশের একনম্বর বিমান সংস্থা এয়ার ইন্ডিয়ার বিমান সেবিকা। অস্ট্রেলিয়া, ইউরোপ এবং আমেরিকার মতো দূরপাল্লার দেশে এয়ার ইন্ডিয়ার বোয়িং 777 এবং 787 ফ্লাইটে এয়ার হোস্টেস হিসেবে কাজ করেছেন স্বাতী। ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি উচ্চতা স্বাতীর পুরো নাম শ্রীমতি স্বাতী কোবিন্দ। মাননীয় রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের কন্যা। এয়ার ইন্ডিয়া কতৃপক্ষ নিজেরাও জানতো না। গোপনই ছিল ব্যাপারটা এই সেদিন পর্যন্ত। কিন্তু আর গোপন থাকলো না। জানতে পেরেই বর্তমান টাটা কতৃপক্ষ শ্রীমতি স্বাতী কোবিন্দকে বিমান সেবিকার পদ থেকে সরিয়ে অফিসের কাজে নিযুক্ত করেছেন (Desk Job)। শ্রদ্ধা জানাই রাষ্ট্রপতিকে, নীরবে নিজের কাজ করে নিজের কন্যাকেও সেই শিক্ষাই দিয়েছেন। যা বর্তমান পঙ্কিল অন্তঃসারশূন্য আত্মম্ভরিতার ভারতীয় রাজনীতিতে এক বিরল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকলো। অভিবাদন জানাই। জয়হিন্দ।”    

তথ্য যাচাই করে আমরা জানতে পারি পোস্টের দাবি ভুয়ো ও বিভ্রান্তিকর। ২০১৭ সালে স্বাতিকে ইয়ার হোস্টেস থেকে গ্রাউন্ড অফিসের কাজে নিযুক্ত করা হয়েছিল যেখানে ২০২২ সালে টাটা গোষ্ঠী সরকারের থেকে এয়ারইন্ডিয়া কিনেছিল। অর্থাৎ স্বাতিকে গ্রাউন্ড ডিপার্টমেন্টে স্থানান্তরিত করেনি টাটা কর্তৃপক্ষ। 

ফেসবুক পোস্ট আর্কাইভ 

তথ্য যাচাই 

পোস্টের ছবিতে দেখতে পাওয়া মেয়েটির পরিচয় খুঁজতে ছবিটিকে গুগল রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। ফলে জানতে পারি ভাইরাল ছবিতে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোভিন্দ এবং তার মেয়ে রয়েছেন। ২০১৭ সালের ২২ জুলাই রাষ্ট্রপতি হিসেবে নিযুক্ত হওয়ার জন্য বাবাকে অভিবাদন জানাচ্ছেন মেয়ে স্বাতি।  

পোস্টের দাবির সত্যতা যাচাই করতে আমরা গুগলে প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড সার্চ করি। ফলাফলে, ২০১৭ সালের ১২ নভেম্বর তারিখের মুখ্যধারার বিভিন্ন প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, স্বাতি এয়ার ইন্ডিয়ার দীর্ঘ দূরত্বের বোয়িং ৭৮৭ এবং বোয়িং ৭৭৭ ফ্লাইটে একজন কেবিন সদস্য হিসেবে কাজ করতেন। প্রায় এক মাস ধরে এয়ার ইন্ডিয়ার গ্রাউন্ড অফিসের কাজে নিযুক্ত আছে। নিরাপত্তার কারণে তাকে এয়ার ইন্ডিয়ার সদর দফতরে এয়ার ইন্ডিয়ার ইন্টিগ্রেশন বিভাগে নিযুক্ত করা হয়েছে। প্রতিবেদন পড়ুন এখানে, এখানে এবং এখানে। 

অন্যদিকে, চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে টাটা গোষ্ঠী ভারত সরকারের কাছ থেকে এয়ারইন্ডিয়া কোম্পানি কিনে নেয় এবং এয়ারলাইন পরিচালনার দায়িত্ত্ব নিয়েছে। 

এখান থেকে স্পষ্ট হয়ে যায়, টাটা এয়ার ইন্ডিয়া কোম্পানি রাষ্ট্রপতির কন্যা স্বাতি কোভিন্দকে গ্রাউন্ডে অফিসের কাজে নিযুক্ত করেনি। ২০১৭ সালে নিরাপত্তার কারণে তাকে গ্রাউন্ড বিভাগে নিযুক্ত করা হয়েছিল। 

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিস্যান্ডো সিদ্ধান্তে  এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল ও ভিত্তিহীন। স্বাতিকে গ্রাউন্ড ডিপার্টমেন্টে স্থানান্তরিত করেনি টাটা কর্তৃপক্ষ

Avatar

Title:রামনাথ কোভিন্দের মেয়ে এয়ার হোস্টেস থেকে গ্রাউন্ড ডিপার্টমেন্টে স্থানান্তরিত করেনি টাটা গোষ্ঠী

Fact Check By: Rahul A 

Result: Partly False


Leave a Reply

Your email address will not be published.