হাসপাতালে ভর্তি থাকা অন্য মহিলার পুরনো ছবিকে পুনম পান্ডে দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল

False Social

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, স্বামীর অত্যাচারে আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি পুনম পান্ডে। পোস্টের ছবিতে দেখা যাচ্ছে মুখে ব্যান্ডেহ এবং অক্সিজেন নল লাগানো অবস্থায় একজন যুবতী একটি হাসপাতালের বেডে শুয়ে রয়েছে। 

পোস্টের ক্যাপশনে কিছু সাম্প্রদায়িক এবং কুরুচিকর মন্তব্য করে লেখা রয়েছে, “তিনি হলেন সি গ্রেডের পুনম পান্ডে যিনি প্রায়শই সোশ্যাল মিডিয়ায় তার অশ্লীল আচরণ নিয়ে আলোচনায় থাকেন। ইনি হিন্দুত্ব এবং হিন্দু দেব-দেবীদের নিয়েও অশালীন মন্তব্য করতে থাকত, ফের ধর্মনিরপেক্ষতা নিয়ে এত চুলকানি পর তিনি শামশাদ আলী ওরফে স্যাম বোম্বেকে বিয়ে করে………………অপ্রাকৃতিক ধারায় মামলা করা হয়েছিল, তার পর সমস্যা মিঠিয়ে নিয়ে ছিল। আর এই বার শামশিদ তাকে এতটাই কেলিয়েছে যে তার চোয়াল ভেঙ্গে যায়, চোখে আঘাত লাগে, সে এখনও হাসপাতালে ভর্তি। জয় ধর্মনিরপেক্ষতার চুলকানির জয়।“ (ভাষায় অশ্লীলতা থাকার জন্য কিছু অংশ বাদ দিয়ে দেওয়া হয়েছে।)

তথ্য যাচাই করে দেখতে পেয়েছি এই ভিত্তিহীন এবং বিভ্রান্তিকর। ২০১৮ সালের হাসপাতালে ভর্তি থাকা অন্য মহিলার ছবিকে পুনম পান্ডে দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে। 

Poonam Pandey.png
ফেসবুক পোস্টআর্কাইভ

তথ্য যাচাই

এই দাবির সত্যতা যাচাই করতে প্রথমে ভাইরাল ছবিটিকে গুগলে রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। ফলাফল হিন্দি সংবাদ ‘দৈনিক জাগরণ’-এর ২০১৮ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর তারিখের একটি প্রতিবেদনে এর অনুসন্ধান পাই। জানতে পারি ছবিতে যাকে দেখা যাচ্ছে তার নাম আরশি পান্ডে। ২০১৮ সালে উত্তরাখণ্ডের হালদওয়ানি জেলার আরশি এবং তার মা পুনম পান্ডেকে গুলি করে হত্যা করার চেষ্টা করে। ব্যাপারটি সকলের নজরে আসার পর দেখা যায় মা পুনম পান্ডে মারা গিয়েছেন কিন্তু মেয়ে আরশি বেঁচে রয়েছে। সঙ্গে আরও দেখা যায় পোষ্য কুকুরকেও গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। এরপর আরশিকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ১৮ দিন হাসপাতালে ডাক্তাররা তাকে বাড়ি নিয়ে যাওয়ার অনুমতি দেন। এই হত্যাকাণ্ডের একমাত্র প্রত্যক্ষদর্শী এবং সাক্ষী হওয়ায় পুলিশ তাকে সুরক্ষা প্রদান করে। 

image4 (1).png
প্রতিবেদন আর্কাইভ

এরপর সংবাদ মাধ্যম ‘অমর উজালা’-এর ২০১৮ সালের একটি প্রতিবেদন থেকে জানতে পারি, আরশি তার বয়ানে বলেন ঘটনার দিন তার তিনজন বন্ধুর জন্য দরজা খুলেন তিনি। তাদের নাম পুলিশকে জানান। সেদিন রাতে লক্ষ্মী দত্ত পান্ডে বাড়িতে ছিলেন না। 

image3 (2).png
প্রতিবেদন আর্কাইভ

সংবাদ মাধ্যম ‘সমাচার প্লাস’-এর ইউটিউই চ্যানেলে এই ঘটনার একটি বিস্তারিত উপস্থাপন দেখতে পাই। ২০১৮ সালের ২৯ অগস্ট ভিডিওটি আপলোড করা হয় কার শিরোনামে লেখা রয়েছে, “মেঘের বজ্রের কণ্ঠে মা-মেয়ের আর্তনাদ চাপা পড়ে, বর্বরতায় কেঁপে ওঠে দেবভূমি।“

২০১৯ সালের একটি প্রতিবেদন থেকে জানতে পারি পুলিশ এই ঘটনার তদন্তে সফল হয়নি।  মূল অভিযুক্ত এখনও ধরা পড়েনি। খবরটি পড়ুন এখানে। 

মডেল তথা অভিনেত্রী পুনম পান্ডে কি হাসপাতালে রয়েছেন?

হ্যাঁ, সাহসী এবং বিতর্কিত ফটোশুটের জন্য বিখ্যাত অভিনেত্রী পুনম পান্ডে দাম্পত্য এবং পারিবারিক অশান্তির জন্য শিরোনামে রয়েছেন। তার স্যাম বোম্বে তাকে আহত মারধোর করে গুরতর আহত করে। এরপরেই অভিনেত্রীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং পুলিশ স্বামী বোম্বেকে গ্রেফতার করে। স্যাম বোম্বে এবং পুনম পান্ডে ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে বিয়ে করেছিলেন। 

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল ও ভিত্তিহীন। ২০১৮ সালের হাসপাতালে ভর্তি থাকা অন্য মহিলার ছবিকে পুনম পান্ডে দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে।

Avatar

Title:হাসপাতালে ভর্তি থাকা অন্য মহিলার পুরনো ছবিকে পুনম পান্ডে দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল

Fact Check By: Rahul A 

Result: False


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *