ভুয়ো ভিডিও শেয়ার করে দাবি, বোরখা পড়ে সাম্প্রদায়িক সমস্যা সৃষ্টি করার চেষ্টা করছে বিজেপি

False Social

সোশ্যাল মিডিয়ায় পুরনো ভিডিও শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, বোরখা পড়ে সাম্প্রদায়িক সমস্যা সৃষ্টি করার চেষ্টা করছে বিজেপি। এই ভিডিওর শুরুতে দেখা যাচ্ছে কয়েকজন দুজন লোককে পুলিশ ঘিরে রেখেছে এবং বোরখা পরিহিত একজন ধীরে ধীরে তার পোশাক খুলছেন। ভিডিওর শেষ প্রান্তে গিয়ে দেখা যাচ্ছে কালো বোরখার নিচে একজন পুরুষ লুকিয়ে ছিলেন। এই পোস্টের ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, “বোরখা পড়ে সাম্প্রদায়িক সমস্যা সৃষ্টি করার আরএসএস এর ঘৃণ্য চক্রান্ত ধরা পরল তেলেঙ্গানা পুলিশের হাতে”। 

ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো তথ্য যাচাই করে দেখতে পেয়েছে এই দাবি ভুয়ো এবং বিভ্রান্তিকর।

তথ্য যাচাই

ভিডিওটিকে কয়েকটি ফ্রেমে ভেঙে গুগলে রিভার্স ইমেজ সার্চ করে দেখতে পাই, এই ভিডিওটিকে একই দাবি করে হিন্দি এবং ইংরেজি ভাষাতেও শেয়ার করা হয়েছে। তাছাড়া এই বিষয়ে আর কোনও যথাযথ তথ্য পাওয়া যাওয়া না। ভিডিওর ক্যাপশনে থেকে কিছু শব্দ নিয়ে কিওয়ার্ড সার্চ করে দেখতে পাই, অন্ধ্রপ্রদেশের কার্নল থানার এসপি, ডাঃ ফাকেরাপ্পা কাগেনেল্লি, ১৬ অগস্ট এই ভিডিওর সাথে যুক্ত একটি রিপোর্ট শেয়ার করে জানিয়েছেন এই দাবি ভুয়ো। তিনি টুইট করে বলছেন, “বোরখা পরিহিত এই ব্যক্তিকে বেআইনি ভাবে মাদকদ্রব্য পাচার করার অপরাধে শুল্ক বিভাগের দ্বারা গ্রেফতার করা হয়েছিল। এরা তেলেঙ্গানা থেকে অন্ধ্রপ্রদেশের কার্নলে মদের বোতল নিয়ে যাচ্ছিলেন। কার্নলের তালুকা থানায় ০৭-০৮-২০২০ তারিখে এই ঘটনার মামলা দায়ের করা হয়েছে।“ 

ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো কার্নলের এসপি ডাঃ ফাকেরাপ্পা কাগেনেল্লির সাথে যোগাযোগ করে। তাকে এই বিষয়ে জিজ্ঞাসা করায় তিনি তার টুইটে লেখা বক্তব্যকে আমাদের জানান। সঙ্গে তিনি আরও বলেন, “ওরা প্রায় ৭০ টির বেশি মদের বোতল তেলাঙ্গানা থেকে বেআইনি ভাবে অন্ধ্রপ্রদেশে পাচার করার চেষ্টা করছিল। তাদেরকে এই দুই রাজ্যের সীমানায় ধরা হয়। পুলিশের চোখে ফাঁকি দেওয়ার জন্য ওই দুজনের মধ্যে একজন বোরখা পরে ছিল। শুল্ক বিভাগ তাদের দুজনকেই গ্রেফতার করে এবং তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। এর সাথে আরএসএস, বিজেপি বা অন্য কোনও দলের সম্পর্ক নেই।

আরও জানতে পারি কার্নলের শুল্ক বিভাগের চিফ ইন্সপেক্টার লক্ষ্মী দুরগাইয়া এই দুজনকে গ্রেফতার করেছিলেন। আমরা লক্ষ্মী দুরগাইয়ার সাথে যোগাযোগ করি। তিনিও একই কথা বলেন এবং নিশ্চিত করেন ওই দুজনকে বেইআইনিভাবে মদের বোতল পাচার করার অপরাধে গ্রেফতার করা হয়েছিল।  

তেলেগু খবরের চ্যানেল ইটিভির একটি রিপোর্টে এই ঘটনার পুরো ভিডিওটি পাওয়া যায়। এই প্রতিবেদনে ভাইরাল হওয়া ভিডিও ছাড়া আরও দেখা যায়, কয়েকজন ব্যক্তিকে পুলিশ রাস্তায় বসিয়ে রেখেছেন এবং তাদের সামনে অনেকগুলি মদের বোতল সাজানো রয়েছে।

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবি ভুল। দুজন ব্যক্তি বেআইনি ভাবে ৭০ টির বেশি মদের বোতল তেলেঙ্গানা থেকে অন্ধ্রপ্রদেশে পাচার করা চেষ্টা করছিলেন। পুলিশের চোখে ফাঁকি দেওয়ার জন্য তাদের মধ্যে একজন বোরখা পরেছিলেন। তেলেঙ্গানা-অন্ধ্রপ্রদেশের সীমানায় পুলিশ তাদের গ্রেফাতার এবং বোরখা পরিহিত ব্যক্তিকে তার পোশাক খুলতে বলে। এটি সেই ঘটনারই ভিডিও। 

Avatar

Title:ভুয়ো ভিডিও শেয়ার করে দাবি, বোরখা পড়ে সাম্প্রদায়িক সমস্যা সৃষ্টি করার চেষ্টা করছে বিজেপি

Fact Check By: Rahul A 

Result: False


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *