স্মৃতি ইরানির সাক্ষাৎকারের ভিডিওকে সম্পাদিত করে ভুয়ো দাবির সাথে শেয়ার   

Altered Political

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে একটি ভিডিও শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, পেট্রোলের দাম বাড়িয়ে গরিবদের সমর্থন এবং ধনীদের ঝটকা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী বললেন স্মৃতি ইরানি। ২০ সেকেন্ডের এই ভিডিও ক্লিপে স্মৃতি ইরানি হিন্দি ভাষায় সংবাদসংস্থা এএনআই-কে সাক্ষাৎকার দিতে দেখা যাচ্ছে। ভিডিওতে তিনি বলছেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী পেট্রোলের দাম বাড়িয়ে গরিবদের সমর্থন করেছেন এবং ধনীদের বিরুদ্ধে মাস্টার স্ট্রোক তৈরি করেছেন। ধনী লোকেরা চার চাকা গাড়ি চালায়। আমরা এখনও দরিদ্র মানুষের পা নিরাপদ রেখেছি, যাতে তারা তাদের গাড়ি এবং তাদের রিকশা চালাতে পারে। 

পোস্টের ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, “মোদীজির আরও একটা মাস্টার স্ট্রোক 😂 আগেই নোটবন্দী করে সন্ত্রাসবাদীদের কোমোর ভেঙে দিয়েছিলেন রেল, তেল, বিমান, বিমা বেচে ইমরানের মেরুদন্ড বাঁকিয়ে দিয়েছিলেন এবার তেলের দাম বাড়িয়ে দেশের ধনীদের হার্নিয়া ধরিয়ে দিয়েছেন জয় মোদীজির জয়! জয় শ্রীরাম!”    

তথ্য যাচাই করে আমরা জানতে পারি পোস্টের দাবি ভুয়ো ও বিভ্রান্তিকর। স্মৃতি ইরানির সাংবাদিক সাক্ষাৎকারের একটি ভিডিওকে ডিজিটালভাবে সম্পাদিত করে বিভ্রান্তিকর দাবির সাথে জুড়ে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে। 

ফেসবুক পোস্ট 

তথ্য যাচাই 

এই দাবির সত্যতা যাচায় করতে আমরা ভিডিওটিকে ভালো করে পর্যবেক্ষণ করি। ভিডিওতে শুনতে পাওয়া কণ্ঠস্বর নিয়ে সংশয় তৈরি করে। তার অন্যান্য সাক্ষাৎকার থেকে শুরু করে পার্লামেন্ট হাউসের বক্তব্য শুনে নিশ্চিত হওয়া যায় ভাইরাল ভিডিওর কণ্ঠ স্মৃতি ইরানির নয়।

ভিডিওর আসল রহস্য খুঁজে বের করতে ভিডিওটিকে ইনভিড টুলের মাধ্যমে কি ফ্রেমে ভেঙ্গে গুগল সহ ইয়ানডেক্স রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। ফলাফলে, এশিয়ান নিউজ ইন্টারন্যাশনাল এর টুইটার হ্যান্ডলে এই সাক্ষাৎকারের দীর্ঘ সংস্করন খুঁজে পেয়ে যাই। ২০২১ সালের ২৪ তারিখে টুইট করা এই পোস্টের ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, “রাহুল গান্ধীর বিদ্বেষপূর্ণ ও প্রতিহিংসাপরায়ণ রাজনীতি যা শুধু আমেথির জনগণ ও ভোটারদেরই অপমান করে না বরং উত্তর ও দক্ষিণ ভারতের মধ্যে বিভাজন তৈরি করতে চায়, প্রত্যেক ভারতীয় নাগরিকের নিন্দা করা উচিত, বলেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি।” 

ভিডিওতে স্পষ্ট লক্ষ্যনিয় স্মৃতি ইরানি ইংরেজি ভাষায় কথা বলছেন হিন্দিতে নয়। পেট্রোল দাম বৃদ্ধি সম্পর্কে নয় রাহুল গান্ধীর এক বিবাদপূর্ণ মন্ত্যবের (স্মৃতি ইরানি ১৫ বছর ধরে উত্তর ভারতের সাংসদ থাকা সত্ত্বেও সাধারণ মানুষের কল্যানে কাজ করতে ব্যার্থ হয়েছেন) উত্তর দিচ্ছেন। 

আর্কাইভ টুইট 

নীচে ভাইরাল ভিডিও ও আসল ভিডিওর তুলনামুলক ফ্রেম দেওয়া হলঃ 

তথ্যের ভিত্তিতে প্রমানিত হয় স্মৃতি ইরানির সাক্ষাৎকারের ভিডিওকে ডিজিটালি কারুকার্যের মাধ্যমে ভিন্ন কণ্ঠস্বর যুক্ত করে ভুয়ো ভিডিও ভাইরাল করা হচ্ছে।  

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল ও ভিত্তিহীন। স্মৃতি ইরানির সাংবাদিক সাক্ষাৎকারের একটি ভিডিওকে ডিজিটালভাবে সম্পাদিত করে বিভ্রান্তিকর দাবির সাথে জুড়ে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল করা হচ্ছে।

Avatar

Title:স্মৃতি ইরানির সাক্ষাৎকারের ভিডিওকে সম্পাদিত করে ভুয়ো দাবির সাথে শেয়ার

Fact Check By: Rahul A 

Result: Altered


Leave a Reply

Your email address will not be published.