২০১৯ সালের মণিপুরের একটি ভিডিওকে শীতলকুচির ঘটনা দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল

False Politics

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পুরনো ভিডিও শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, কোচবিহারে তৃনমূলের সমর্থকরা নির্বাচন চলাকালীন আশান্তি করছে। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, অনেকগুলি লোককে একটি ঘর থেকে দৌড়ে বেরিয়ে আসছে এবং পুলিশ তাদের লাঠি হাতে তাদের তাড়া করছে। পোস্টের ক্যাপশনে ইংরেজি ভাষায় লেখা রয়েছে, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমর্থকরা পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহারে একটি ভোটকেন্দ্রে হামলা করছে। দুষ্কৃতীদের তাড়িয়ে চমৎকার কাজ করেছে সিআরপিএস জওয়ানরা।“

তথ্য যাচাই করে দেখতে পেয়েছি এই দাবি ভুয়ো এবং বিভ্রান্তিকর। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের সময়ের মণিপুরের একটি ভিডিওকে ভুয়ো দাবির সাথে ভাইরাল করা হচ্ছে। 

টুইট

উল্লেখ্য, উল্লেখ্য, ১০ এপ্রিল বাংলায় চতুর্থ দফার নির্বাচন চলাকালীন কোচবিহারের শীতলকুচিতে কেন্দ্রীয় বাহিনী এবং স্থানীয়দের সংঘর্ষে জওয়ানদের গুলিতে চার জন নিহত হয়। নির্বাচন কমিশন প্রাথমিক রিপোর্টে জানায় আত্মরক্ষার স্বার্থে গুলি চালাতে বাধ্য হয় রক্ষীরা।

তথ্য যাচাই

এই ভিডিওর সত্যতা যাচাই করতে ভিডিওটিকে ইনভিড-উই-ভেরিফাই টুলে কয়েকটি ফ্রেমে ভাগ করে গুগলে সহ কয়েকটি সার্চ ইঞ্জিনে রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। ফলাফলে দেখতে পাই ২০১৯ সালের ১৮ এপ্রিল এই ভিডিওটিকে সংবাদমাধ্যম “এনডিটিভি”র ইউটিউব চ্যানেলে দেখতে পাই। ভিডিওটির শীর্ষকে লেখা রয়েছে, “মণিপুরের একটি ভোটকেন্দ্রে গন্ডগোল বাধার পর নির্বাচনী প্রক্রিয়া থেমে যায়”। ভিডিওর বিবরণ থেকে জানতে পারি মণিপুরের পূর্ব ইম্ফল জেলার কিয়ামেগি মাদ্রাসা বুথে এই ঘটনাটি ঘটে। 

এরপর কিওয়ার্ড সার্চ করে সংবাদমাধ্যম “দ্যা নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস”-এর ইউটিউব চ্যানেলে এই ভিডিওটিকে দেখতে পাই। ২০১৯ সালের ১৮ এপ্রিল আপলোড করা এই ভিডিওর ক্যাপশনেও মণিপুরের সন্ত্রাসের কথা লেখা রয়েছে। এই ভিডিওর বিবরণ থেকে জানতে পারি, নির্বাচন চলাকালীন মণিপুরে ভিড়কে ছত্রভঙ্গ করার জন্য সিএরপিএফ কর্মীরা শুন্যে গুলি চালায়। অভিযোগ ওই ভিড়ের জনতা জোর করে কিয়ামেগি মাখা লেইকাই ভোটকেন্দ্রে ঢোকার চেষ্টা করছিল।

এরপর আরও দেখতে পাই সংবাদমাধ্যম “ফার্স্টপোস্ট”-এর টুইটার হ্যান্ডেল থেকে ২০১৯ সালের ১৮ এপ্রিল এই ভিডিওটিকে শেয়ার করা হয়েছিল। এর থেকে স্পষ্ট হয়ে যায় যে এটি দু’বছর পুরনো ভিডিও এবং এর সাথে পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনের কোনও সম্পর্ক নেই। 

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের সময়ের মণিপুরের একটি ভিডিওকে ভুয়ো দাবির সাথে ভাইরাল করা হচ্ছে। 

Avatar

Title:২০১৯ সালের মণিপুরের একটি ভিডিওকে শীতলকুচির ঘটনা দাবি করে ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল

Fact Check By: Rahul A 

Result: False


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *