না, ভাইরাল ছবিতে নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু তার নিজের মৃত্যুর খবর পড়ছেন না

Altered Social

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে একটি ছবি শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, সুপার এক্সপ্রেস পত্রিকায় নিজের মৃত্যুর খবর পড়ছেন নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু। ছবিতে দেখা যাচ্ছে একটি খবরের কাগজ হাতে বসে রয়েছেন নেতাজি। কাগজের নাম মুখ্য খবরের শিরোনামে লেখা রয়েছে, সুভাষচন্দ্র বসু মৃত (MR. SUBHASH CH BOSE DEAD) এবং তার একটি ছবি দেওয়া রয়েছে প্রতিবেদনের সাথে। 

ছবির ওপরে লেখা রয়েছে, “২৩শে আগস্ট ১৯৪৫ সুপার এক্সপ্রেস পত্রিকায় নেতাজির বিমান দুর্ঘটনায় মৃত্যু সংবাদ প্রকাশিত হয়, নেতাজি নিজের মৃত্যু সংবাদ নিজেই খবরের কাগজে দেখছেন।“ 

তথ্য যাচাই করে আমরা জানতে পারি পোস্টের মাধ্যমে করা দাবি ভুয়ো ও ভিত্তিহীন। জাপানি সংবাদপত্র নিপ্পন টাইমস হাতে নেতাজির একটি ছবিকে সম্পাদিত করে ভুয়ো দাবির সাথে শেয়ার করা হচ্ছে। 

ফেসবুক পোস্ট আর্কাইভ 

তথ্য যাচাই

এই দাবির সত্যতা যাচাই করতে ছবিটিকে গুগলে রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। ফলাফলে দেখতে পাই, এই একই রকমের একটি ছবির ‘Netaji Subhash Chandra Bose Memorial In Delhi’ নামের একটি ফেসবুক পেজ থেকে ২০১৮ সালের ২৮ মে তারিখে পোস্ট করা হয়েছে। পোস্টটির ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, “নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু জাপানের বৃহত্তম এবং প্রাচীনতম ইংরেজি ইংরেজি দৈনিক সংবাদপত্র নিপ্পন টাইমস (বর্তমানে জাপান টাইমস) পড়ছেন।“ 

এই ছবিতে দেখা যায় নেতাজির হাতে থাকা খবরের কাগজের শিরোনামে সুভাষ চন্দ্রের মৃত্যু নিয়ে কোনও কিছুই লেখা নেই এবং তার ছবির জায়গায় অন্য একটি ছবি রয়েছে।   

ফেসবুক পোস্ট আর্কাইভ 

‘Conundrum: Subhas Bose’s Life after Death’ এবং ‘Your Prime Minister is Dead’ বইয়ের লেখক অনুজ ধর ২০১৮ সালে তার টুইটার আকাউন্ট থেকে এই ছবিটি পোস্ট করেন। তিনি ক্যাপশনে বলেন, “নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু জাপানের বৃহত্তম এবং প্রাচীনতম ইংরেজি ইংরেজি দৈনিক সংবাদপত্র নিপ্পন টাইমস (বর্তমানে জাপান টাইমস) পড়ছেন।“ 

এই ছবিতে স্পষ্টভাবে দেখা যায় শিরোনামে লেখা রয়েছে “TOJO DELIVERS VITA….(অস্পষ্ট) AS EAST ASIA ASSEMBLES”। 

আর্কাইভ

এরপর ২০১৯ সালে লেখক অনুজ ধর সম্পাদিত ভাইরাল ছবিটি টুইট করে বলেন, আসল ছবি @BiplabC2-এর কল্পনার সাথে। স্পষ্টভাবেই বোঝা এখানে বলা হয়েছে যে আসল ছবিকে কাল্পনিকভাবে তৈরি করা হয়েছে। 

আর্কাইভ     

এরপর ভাইরাল ছবিটি এবং আমাদের অনুসন্ধানে পাওয়া ছবিটিকে তুলনা করে স্পষ্ট দেখতে পাওয়া যায় ভাইরাল ছবিটির প্রতিবেদনের শিরোনাম এবং আসল ছবিটির প্রতিবেদনের শিরোনাম এক নয়।  

যুক্তি ও প্রমানের সাপেক্ষে স্পষ্টভাবে বলতে পারি নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু পত্রিকায় তার নিজের মৃত্যুর খবর পড়ছেন না। 

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল ও ভিত্তিহীন। জাপানি সংবাদপত্র নিপ্পন টাইমস হাতে নেতাজির একটি ছবিকে সম্পাদিত করে ভুয়ো দাবির সাথে শেয়ার করা হচ্ছে।

Avatar

Title:না, ভাইরাল ছবিতে নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু তার নিজের মৃত্যুর খবর পড়ছেন না

Fact Check By: Nasim A 

Result: Altered


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *